বাঙালি

এনার্কো-সিন্ডিক্যালিজমঃ তত্ত্ব ও প্রয়োগ -সিন্ডিক্যালিজমের অগ্রদূতেরা (১ম কিস্তি)

প্রাথমিক স্তরের সমাজবাদি ভাবধারায় গড়ে উঠা শ্রমিক আন্দোলনের সাথে আমাদের বর্তমান বিপ্লবী সিন্ডিক্যালিজম আন্দোলনের একটি গভীর যোগসূত্র আছে। এই ভাবধারাটি প্রথমিক ভাবে বিরাট শিল্পের মাতৃভূমি ইংল্যান্ডে সূত্রপাত হয়, এবং পরে ইংলিশ শ্রমিক শ্রেনীর নানা বিভাগের মাঝে ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করতে থাকে। কম্বিনেশন আইন বাতিলের পর শ্রমিক শ্রেনী বৃহত্তর পরিসরে তাঁদের ট্রেড ইউনিয়ন গুলো শক্তিশালী করার সুযোগ পায়, এত কাল তাঁদের স্থানীয় বা স্ব স্ব কর্ম ক্ষেত্রে কাজ করার যে অভিজ্ঞতা তাঁরা অর্জন করেছে তা এখন বৃহত্তর পরিসরে কাজে লাগাবার সুযোগ পায় ।

এনার্কো-সিন্ডিক্যালিজমঃ তত্ত্ব ও প্রয়োগ

আধুনিক যন্ত্রপতির উৎপাদন শুরুর পর থেকেই চারিপাশের সব কিছুতে একটা ব্যাপক পরিবর্তন চলে আসছিলো, সাধারন বাজারে পণ্যের চাহিদা ও দিনে দিনে বাড়তে থাকে, এবং বিদেশী বাজার দখলের প্রবনতা ও লক্ষ্য করা যায় প্রবল ভাবে । প্রতিটি নয়া আবিস্কার, উৎপাদনে নয়া মাত্রা যুক্ত হয়, বাড়তে থাকে উৎপাদনের পরিমাণ, অন্যদিকে ঝামেলা মুক্ত কল কারখানার মালিকদের শিল্প পুঁজির পরিমাণ বৃদ্বি পায় ব্যাপক ভাবে, আয় বৃদ্বি পায় ব্যবসা বানিজ্যের ও সকল ক্ষেত্রে।

এনার্কো-সিন্ডিক্যালিজমঃ তত্ত্ব ও প্রয়োগ

সমাজের চলমান আভ্যন্তরীণ নানা প্রকার দ্বন্দ্ব ও অসঙ্গতি দূরকরার জন্য যখন মানুষের প্রয়োজন তিব্রতর হয়, তখনই সমাজবাদের উদ্ভব হয়, যা মানুষকে নয়া পরিবেশে নয়া সামাজিক সম্পর্কের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়। এটা প্রথমিক ভাবে একটি ক্ষদ্র বুদ্বিজীবী মহলকে প্রভাবিত করে যারা শ্রমিক নয়, বরং সমাজের সুবিধা প্রাপ্ত শ্রেনীর লোক। তাঁরা প্রভাবিত হয়েছিলেন মূলত একটি মহৎ ভাবনা ও মানুষের প্রতি তিব্র ভালোবাসা থেকে।

Socio-Economic condition of Bangladesh!

The proletariat had nothing to lose but their chains. That was speaking figuratively. By the time Europe had mostly abolished slavery, at least officially. It was said to the wage slavery of the free laborer, who nonetheless suffered intense poverty in the Europe of the past just as free laborers suffer today in the Third World. In our land, our people suffer not just from “wage slavery” of the free laborer, but also slavery in its most vicious and barbaric form still exists even though it is now the twenty-first century. And it is only getting worse with the globalization of capitalism. Slavery, human trafficking, in Bangladesh is now tightly bound to the global market.

এনার্কো-সিন্ডিক্যালিজমঃ তত্ত্ব ও প্রয়োগ

এনার্কিজম বা নিরাজবাদ মানব সমস্যার সমাধানের জন্য কোন চিরন্তন বানী নয়, এটা আবার কোন কল্পনা প্রসূত মতবাদ ও নয়, এই মতবাদ যেকোন চিরন্তন বানী বা মতবাদ বিরুধী। এটা কোন চিরন্তন সত্যে বিশ্বাসী নয়, বা মানবজাতির চূড়ান্ত মতবাদ হিসাবে ও দাবী করে না ।

গ্রন্থঃ এনার্কো-সিন্ডিক্যালিজমঃ তত্ত্ব ও প্রয়োগ

কার্ল মার্ক্স একটি নয়া ব্যবস্থার কথা বলেছিলেন, তিনি প্রলেতারিয়েতদের একনাকত্বের ধারানার প্রবর্তনের প্রস্তাব দেন, তিনি বলেছিলেন, একটি শ্রেনীহীন সমাজ বিনির্মানের জন্য এটা হবে একটি অন্তর্বতীকালিন ব্যবস্থা। তিনি আরো প্রস্তাব করেন, শ্রেনীর দ্বন্দ্ব, শ্রেনী স্বার্থ যখন থাকবে না তখন রাষ্ট্র আপনা আপনিই বিলয় হয়ে যাবে। এই ধরনের ধারনা সামগ্রীক ভাবে ছিলো ভূলে ভরা, ঐতিহাসিক ভাবে রাষ্ট্রের যে ধর্ম, ধরন বা প্রকৃতি যেখানে সর্বদা বিরাজ করে রাজনৈতিক ক্ষমতার চর্চা।